বিনোদন

কি চায় অন্ধ অবিনাশ (ভিডিও)

আনোয়ারুল রানাঃ প্রতিটি মানুষ বেঁচে থাকে নির্দিষ্ট কিছু স্বপ্ন নিয়ে। সময় অন্তর অনেকেরই স্বপ্নগুলো পূর্ণতা পায়,-আবার পরিবেশ গত কারন কিংবা নানা প্রতিবন্ধকতায় অনেকেরই স্বপ্ননগুলো রয়ে যায় চির অধরায়। তাদের প্রতিভাগুলো বিকশিত হয়ে বুকের ভিতর পুশে রাখা স্বপ্ন পুর্নতা পাওয়ার আগেই ঝরে যায় ভাগ্য কিংবা বাস্তবতার অভাবনিয় চক্রে বন্দি হওয়ায়। তেমনি একজন প্রতিভাবান মানুষ শ্রী অবিনাশ চন্দ্র। উলিপুর উপজেলার গুনাইগাছ ইউনিয়ের নেফরা মৌজার নিম্নবিত্ত এক হিন্দু পরিবারে তার জন্ম। বয়স আনুমানিক ৩০ বছর । জন্মের পরপরই কঠিন এক ব্যাধিতে আক্রান্ত হয়ে দুটো চোখের দৃষ্টি হারার কারনে অবিনাশের নামের সম্মুখটায় এখন উল্লেখ অন্ধ শব্দটি। তাই ছোট বড় সকলেই তাকে চেনে অন্ধ অবিনাশ নামে। অর্থনৈতিক অসচ্ছলতার কারনেই অবিনাশের শিক্ষাজীবন শুরু হয় পার্শ্ববর্তী গ্রামে অবস্থিত ছিন্নমুকুল নামের একটি এনজিওতে। ছোটবেলা থেকেই সংগীতের প্রতি অবিনাশের ছিলো নিবির প্রেম। পড়াশুনার পাশাপাশি সংগীতের প্রতি অভাবনীয় অনুরাগের কারনেই উক্ত প্রতিষ্ঠানের সংগীত বিষয়ক শিল্পী পঞ্চানন রায় অল্প বয়সেই তাকে গুরুদক্ষিণা প্রদান করেন। এখন অবধি বলতে পারেন ঐ দক্ষিণাটুকুই তার সামনে চলার পাথেয়…।

সময়ের প্রেক্ষাপটে ছিন্নমুকুল উক্ত গ্রাম হতে বিলুপ্ত হওয়ায় পরবর্তিতে অন্য কোথাও পড়াশুনার সুযোগ হয়নি তার।
অতীতে অবিনাশ উলিপুরের স্থানীয় অসংখ্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করে সর্বস্তরের মানুষের প্রশংসা কুরিয়েছে, পেয়েছে অগনিত মানুষের ভালোবাসা ও পুরস্কার ।
বর্তমানে সে বেকার, একদিকে যেমনি বিধবা মা, স্ত্রী ও সন্তানকে নিয়ে দারিদ্রতার চরম কশাঘাতে জর্জরিত তার জীবন অন্যদিকে গ্রাম গুলোতে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বিলুপ্তপ্রায়, বিধায় আগের মতো কদর এখন নেই অবিনাশের।
অবিনাশের বাবা গত হয়েছে অনেকদিন আগে। বিমাতা বড় ভাই রাজধানীর মোহাম্মদপুর মহিলা কলেজের শিক্ষক, স্ত্রী সন্তান নিয়ে তিনি সেখানেই থাকেন। এই সমাজের অন্যসব মানুষের ন্যায় বিমাতা বড় ভাইয়ের কাছেও তার খুব বেশি চাওয়ার ছিলো না। এতটুই চাওয়ার ছিলো… শহড়ের কোন এক সংগীত একাডেমিতে ভর্তি, সংগীত চর্চার পথ সুগম সহ বড়মানের শিল্পী হওয়ার পথে কিছুটা সহানুভূতি। কিন্তুু অার দশ জনের ন্যায় বিমাতা বড় ভাইও তার দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নেয় অবলিলা।

পুনরায় সমাজের হৃদয়বান ব্যাক্তিদের দৃষ্টি আকর্শন করছিঃ আসুন অন্ধ অবিনাশের পাশে দাড়াই… উম্মুক্ত করি তার খ্যাতনামা শিল্পী হওয়ার রুদ্ধ পথ, মুক্ত করি স্ব স্ব সামাজিক দায়।

ইউটিউবে ভিডিও গান দেখতে এখানে ক্লিক করুন।

অথবা

ইউটিউবে ভিডিও গান দেখতে এখানে ক্লিক করুন।

সংবাদ উৎস
ফেসবুক

এমন আরও সংবাদ

এছাড়াও এই নিউজ টা পরতে পারেন

Close
Close
Close